ধরিত্রী দিবসে গুগল ডুডল

অন্যান্য বিশেষ দিনের মতো আজ শনিবার বিশ্ব ধরিত্রী দিবস উপলক্ষেও একটি অসাধারণ ডুডল প্রকাশ করেছে টেক জায়ান্ট গুগল। প্রতি বছরই ধরিত্রী দিবসে ডুডল ছাড়লেও এবারের ডুডলটি অনেক বেশি তথ্যবহুল এবং হৃদয় ছুঁয়ে যাওয়া। কেননা এবারের ডুডলটিতে রয়েছে পৃথিবীকে বাঁচানোর আকুতি নিয়ে তৈরি ছবিভিত্তিক একটি গল্প।

গল্পটি প্রাণীজগতের কয়েকটি বন্ধুর। প্রথমেই দেখা যায়, একটি কুকুর তার বিছানায় রাতের বেলা আরামে ঘুমিয়ে আছে। ঘুমিয়ে ঘুমিয়ে পৃথিবী নিয়ে স্বপ্নও দেখছে সে। কিন্তু ঘুমটা বেশিক্ষণ আর আরামের থাকে না। কেননা কিছুক্ষণের মধ্যেই স্বপ্নটি দুঃস্বপ্নে বদলে যেতে থাকে। স্বপ্নে কুকুরটি প্রথমেই দেখল একটা সুন্দর মাছ সমুদ্রের তলদেশে মরে পড়ে আছে।

তারপরের অংশ আরও ভয়ানক। কুকুরটি দেখল ছোট্ট একটা পেঙ্গুইন বরফের ওপর দাঁড়িয়ে থাকার চেষ্টা করছে। কিন্তু হঠাৎ বরফটুকু ভেঙ্গে সে পড়ে যাচ্ছে পানিতে। কেননা মেরু অঞ্চলের বরফ সব গলে যাচ্ছে।

স্বপ্ন দেখে ভয় পেয়ে ঘুম ভেঙ্গে যায় কুকুরটির। চমকে জেগে ওঠে সে। ধাতস্থ হয়েই বুঝতে পারে, দুঃস্বপ্নটিকে বাস্তবে পরিণত ঠেকাতে তাকে এখন কী করতে হবে।

তক্ষুণি বিছানা ছেড়ে নেমে পড়ে কুকুরটি। একটি কোদাল হাতে নিয়ে ছুটে যায় ঘরের বাইরে।

কুকুরটি বাইরে গিয়ে মাটি খুঁড়ে গাছ লাগানো শুরু করে। তার এই পৃথিবীটাকে বাঁচাতে হবে। তার এই কাজ দেখে বন্ধু বিড়ালটাও এগিয়ে আসে। দু’জনে সিদ্ধান্ত নেয় ধরিত্রী রক্ষায় কাজ করে যাওয়ার।

বন্ধুরা বাজারে গিয়ে খাবার হিসেবে শুধু শাকসবজি কেনে মাছমাংসের বদলে। সেখানে বন্ধু ব্যাঙকেও তাদের পৃথিবী রক্ষার পরিকল্পনার কথা জানায়। বন্ধু ব্যাঙও যোগ দেয় তাদের সঙ্গে।

মোটরযানের বদলে চলাচলের জন্য পরিবেশবান্ধব সাইকেল বেছে নেয় এই প্রাণী বন্ধুরা। তাদের দেখাদেখি অন্যরাও পরিবেশ দূষণ রোধে বেশি গাড়ি রাস্তায় বের না করে একই গাড়িতে অনেকে মিলে চলাচল শুরু করে। আর বাকিরা বাস-ট্রেনের মতো পাবলিক বাহন বেছে নেয়।

ঘরে ফিরেও নবায়নযোগ্য বিদ্যুৎশক্তি ব্যবহার শুরু করে কুকুর, বিড়াল আর ব্যাঙ। কেউ বায়ুবিদ্যুৎ আবার কেউ সৌরবিদ্যুৎ চালিত সরঞ্জাম বেছে নেয়।

রাতে ঘুমানোর আগে মনে করে অপ্রয়োজনীয় বাতিটা বন্ধ করে দেয় ব্যাঙ। বিদ্যুৎ সাশ্রয় এবং বাড়তি নিরাপত্তার জন্য ব্যবহার হবে না এমন বৈদ্যুতিক সরঞ্জামের প্লাগ কুকুর খুলে রাখে। আর বিড়ালটা হিটারের আঁচটা কমিয়ে দেয়, যেন গ্যাস খরচ কম হয়।

সব দায়িত্ব সেরে প্রশান্ত মনে ঘুমিয়ে পড়ে তিন বন্ধু। আজকেও তারা স্বপ্ন দেখছে। কিন্তু আজকের স্বপ্নটা সুন্দর, একটি দুষণমুক্ত নতুন পৃথিবীর।

গল্পের শেষ ছবিটিতে ‘লার্ন মোর’ নামের একটি লিংক আছে। সেখানে ক্লিক করলে আরেকটি ছবি আসে, যেখানে লেখা: ‘চলো বানাই একটি সুখি পৃথিবী’। সেই ছবিটিতেও একটি লিংক রয়েছে, যেখানে ক্লিক করলে প্রাকৃতিক শক্তি রক্ষা এবং জলবায়ু পরিবর্তন ঠেকানোর উদ্দেশ্যে আমরা ভূমিকা রাখতে পারি এমন বেশ কিছু পরামর্শ রয়েছে।

এছাড়াও ছবিটির নিচে রয়েছে বিশ্ব ধরিত্রী দিবস সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্যসহ সার্চ পেজ।

Share

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Facebook Like Box

SuperWebTricks Loading...